• সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪০ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

স্বামী মারা যাওয়ার ৪৪ বছরেও মেলেনি বিধবা ভাতা

বীরযোদ্ধা / ৯৯
প্রকাশিত : ৫:০২ পিএম, (সোমবার) ২৬ এপ্রিল ২০২১

শাকিব খান, নাগরপুর (টাঙ্গাইল) :

আজ থেকে প্রায় ৪৪ বছর আগের কথা, নিরাঞ্জন যখন ৪ মাসের বাসন্তীর গর্ভে, তখন নাগরপুর উপজেলার ভাদ্রা ইউনিয়নের বেহালী খামার গ্রামের নিরাঞ্জনের পিতা গনেশ চন্দ্র সূত্রধর এ পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করেন। স্বামীর রক্ত আমাশয় মারা যাওয়ার পর মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ে বাসন্তীর উপর। ২ ছেলে ২ মেয়ে এবং গর্ভে অনাগত সন্তান সহ নিজের ভরনপোষণ নিয়ে উপায়ান্তু না পেয়ে ভিক্ষাবৃত্তির পথ বেছে নেয় তখন। ১৯৫৭ সালের প্রথম দিকে জন্ম বাসন্তীর, মুদ্রিত রয়েছে তা স্মার্টকার্ডে, তার বয়স ৬৪ অতিক্রম করেছে আজ।
গত বছর, নাগরপুর উপজেলাকে শতভাগ সামাজিক নিরাপত্তার আওতায় এনেছে সরকার। বয়স্ক, বিধবা, প্রতিবন্ধী ভাতা এখন উপজেলায় শতভাগ হলেও বাসন্তীর ৬৪ বছরের জীবন সংগ্রামে আজও মেলেনি বয়স্ক ভাতা। স্বামী হারিয়েছে প্রায় ৪৪ বছর হলেও জোটেনি বিধবা ভাতার একটি কার্ড। ৪৪ বছরের ভিক্ষাবৃত্তির পরও মেলেনি ১০ টাকা কেজি দরের ওএমএস এর চাউল। পায়নি ভিজিডি কার্যক্রমের ১ কেজি চাউল। করোনা মোকাবিলায় সরকারের পক্ষ থেকে ২৫০০ টাকা দেয়া হলেও পায়নি বাসন্তী। ১ বছরের বেশি হলো করোনা, লকডাউন বেঁচে আছে কি না তাও খবর নেয়নি কেউ। কথার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকারের কাছ থেকে সে ১০ টা পয়সার সুযোগ সুবিধে পায়নি। তবে এ সব সুযোগ সুবিধে না পাওয়া নিয়ে নেই তার মনে বিন্দু মাত্র কষ্ট। হাসিমুখে বলেন, আগে বস্যা (বর্ষা) মাসে অনেক পানি হইতো, এহন বস্যা মাসে খুব বেশি পানি হয় না। অনেক কষ্ট কইরা হাতর পাইরা ভিক্কা করছি। এহন আর এতো কষ্ট হয়না। আর বাপু বাচুমই কয় দিন। এহন আর এগুন দিয়া কি হইবো।
এ বিষয়ে ভাদ্রা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. হাবিবুর রহমান বলেন, উপজেলা সমাজ সেবা অফিস ও ইউনিয়ন পরিষদের সমন্বয় হীনতার কারনে অনেক কাজ সঠিক ভাবে হয় না। বাসন্তীর নাম গতবছর আমি দিয়েছি এখনও কেন হয়নি, এটা আমার বোধগম্য নয়। তবে এ বিষয়ে আমি খোঁজ খবর নেব।
নাগরপুর উপজেলার সমাজসেবা অফিসার সৌরভ তালুকদার জানান, আমাদের উপজেলায় শতভাগ সামাজিক নিরাপত্তার ঘোষণা হলেও সবাইকে দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। তার বয়‌সের কথা শুনে বলেন, আগে জানা থাকলে, তাকে বয়স্ক ভাতার কার্ড করে দিতে পারতাম। আর কত বছর বিধবা থাকলে, তিনি বিধবা ভাতার একটি কার্ড পেতে পারে? এমন প্রশ্নের উত্তরে সৌরভ তালুকদার জানান, আসলে শত ভাগ সুবিধার মধ্যে সকলকে এ সুবিধার মধ্যে আনতে সময় লাগবে। নীতিমালা অনুযায়ী কাজ করলে সকলেই ভাতা পাওয়ার কথা। ৪৪ বছর যাবৎ বিধবা, আর কত দিন বিধবা থাকলে বাসন্তী ভাতা পাবে, এমন প্রশ্নের উত্তরে সৌরভ তালুকদার বলেন, আমাদের সাথে যোগাযোগ করলে, আমরা ব‌্যবস্থা করে দেব।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর