• সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৫৩ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

শেরপুরে সুদের টাকার চাপে বিষপানে যুবকের আত্মহনন

বীরযোদ্ধা / ৭২
প্রকাশিত : ১২:২৭ পিএম, (রবিবার) ১৬ মে ২০২১

শেরপুর প্রতিনিধি :

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার গৌরিপুর ইউনিয়নের পুর্বগজারীকুড়া গ্রামে সুদের টাকার চাপে লেবু মিয়া (১৮) নামে এক যুবক বিষপানে আত্মহনন করেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার (১৩ মে) বিকেলে।

নিহত লেবু মিয়া ওই গ্রামের আনিছুর রহমানের ছেলে। এ ঘটনায় ঝিনাইগাতী থানায় একটি মামলা হয়েছে।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানা যায়, লেবু মিয়া তার অভিভাবকদের অজান্তে স্থানীয় যুবক মোশারফ ও রেজাউলের মাধ্যমে বেশ কিছুদিন পুর্বে সুদে দুই সুদখোরের কাছ থেকে ১০ হাজার টাকা ঋন করে। কিন্তু লেবু মিয়া ওই টাকার সুদ আসল কোনোটাই পরিশোধ করেনি। লেবু মিয়া বেশ কিছুদিন ঢাকায় অবস্থান করে গত বেশ কিছুদিন পূর্বে বাড়ি আসে।

১৩ মে দুপুরে মোশারফ, রেজাউলসহ আরও দুই পাওনাদার লেবু মিয়াকে মোশারফের বাড়িতে ডেকে এনে তাকে মারধর করে। এ সময় লেবু মিয়া সুদখোরদের হাত থেকে রক্ষা পেতে বিকালে টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে বাড়ি চলে আসে। লেবু মিয়ার দেওয়া প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী বিকেলে ওই চারজন টাকা নিতে লেবু মিয়ার বাড়ি আসে। ঘটনাটি লেবু মিয়ার অভিভাবকরা জানতে পেরে পাওনাদারদের কাছে এক সপ্তাহের সময় চেয়ে টাকা পরিশোধের দায়িত্ব নেন। কিন্তু পাওনাদাররা এতে রাজি না হয়ে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে লেবু মিয়া বিষ পান করে গুরুতরভাবে আহত হয়।

আহত লেবু মিয়াকে ঝিনাইগাতী সরকারি হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানকার ডাক্তাররা তাকে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

খবর পেয়ে থানা পুলিশ লেবু মিয়ার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরন করে। ময়না তদন্ত শেষে লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এ ব্যাপারে লেবু মিয়ার পিতা আনিছুর রহমান বাদি হয়ে ৪ জনকে আসামী করে ১৩ মে রাতেই ঝিনাইগাতী থানায় মামলা করে।

ঝিনাইগাতী থানার ওসি মোহাম্মদ ফায়েজুর ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, এ ঘটনায় মামলা রুজু হয়েছে। আসামি গ্রেফতারে অভিযান চলছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর