• শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:৫১ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

শেরপুরে নারী নিগ্রহের বিচার দাবিতে মানববন্ধন

বীরযোদ্ধা / ১১৬
প্রকাশিত : ৩:৩১ পিএম, (বৃহস্পতিবার) ৬ মে ২০২১

নাজমুল হোসাইন :

শেরপুর শহরের চকবাজার শহীদ মিনারে নাগরিক সংগঠন জনউদ্যোগের আয়োজনে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টায় নারীর প্রতি সহিংসতা রোধ, অপপ্রচার বন্ধ ও আইনী সুরক্ষার দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ শেরপুর জেলা শাখা, ইনস্টিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট এন্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি), নারী রক্তদান সংস্থা, শেরপুর জেলা আদিবাসী সমাজ উন্নয়ন সংস্থা, শেরপুর জেলা হিজরা কল্যাণ সংস্থা, শেরপুর জেলা বর্মণ ছাত্র পরিষদ, হিউম্যান রাইটস ডিফেন্ডার ফোরাম (এইচআরডি) অংশগ্রহণ করে।

শেরপুর জেলা জনউদ্যোগ আহবায়ক আবুল কালাম আজাদের সঞ্চালনায় ও শেরপুর জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নীরু শামসুর নাহারের সভাপতিত্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনায় বক্তব্য প্রদান করেন, শেরপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শরিফুর রহমান, শেরপুর সদর উপজেলা কমিউনিস্ট পার্টির সভাপতি সোলায়মান আহমেদ, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ শেরপুর জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক আইরিন পারভীন, শেরপুর ডিসট্রিক্ট ডিবেট ফেডারেশন (এসডিডিএফ) এর সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ চৌধুরী শৈবাল, আইইডির আইপি ফেলো আদিবাসী নেতা সুমন্ত বর্মণ, নারী রক্তদান সংস্থার সভাপতি প্রতিভা নন্দী তিথি প্রমুখ।

বক্তারা সম্প্রতি বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীর কর্তৃক নিগৃহীত মোসারাত জাহান মুনিয়ার মৃত্যুর ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানাল। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে এটি হত্যা না আত্মহত্যা তা দ্রুত উদঘাটন করে জড়িতদের দ্রুত শাস্তির নিশ্চিত করার দাবি জানান। একজন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের এমন অকাল মৃত্যুতে তারা উদ্বেগ প্রকাশ করেন। একই সাথে তারা মামুনুল হকদের মতো ভন্ড ধর্ম ব্যবসায়ী কর্তৃক নারী নিগ্রহেরও সঠিক বিচারের দাবি জানাল।

বক্তারা আরও বলেন, শুধু আনভীর বা মামুনুল নয় এধরণের যত নারী নিগ্রহকারী, নারী নির্যাতনকারী রয়েছে তাদের সকলের কঠোর বিচার নিশ্চিত করতে হবে। একই সাথে সামাজিক ও পারিবারিক সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে যেন আর কোনো নারী এমন সহিংস ঘটনার শিকার না হয়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর