• সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:০০ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

বদলগাছীতে ঈদের আকর্ষণ ৪০ মণ ওজনের গরু ‘ক্যাপ্টেন’

বীরযোদ্ধা / ৪৫
প্রকাশিত : ৩:৪৯ পিএম, (রবিবার) ২৭ জুন ২০২১

আহসান হাবীব শিপলু :

কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে নওগাঁ জেলার বদলগাছী উপজেলার ঐতিহাসিক পাহাড়পুর ইউনিয়নের সেরা আকর্ষণ ক্যাপ্টেন। সাদা-কালো রঙের মিশ্রণে ক্যাপ্টেন খুবই শান্ত-শিষ্ট স্বভাবের। গরুটির ওজন প্রাই ৪০ মণ। এর দাম হাঁকা হয়েছে ২০ লাখ টাকা। শুধু তাই নয়, ক্যাপ্টেনের ক্রয় করলে সঙ্গে ফ্রি থাকছে ৫ মণ ওজনের আরও একটি গরু।

ক্যাপ্টেনের মালিকের নাম মোঃ মাসুদ রানা। তিনি বদলগাছী উপজেলার পাহাড়পুর ইউনিয়নের জগদিশপুর গ্রামের বাসিন্দা। পাহাড়পর বাজার থেকে ৫ কিলোমিটার পূর্বে এবং জামালগন্জ বাজার থেকে ২ কিঃমিঃ পশ্চিমে। তিনি একজন গবাদি পশু-পাখির খাবার বিক্রেতা।

মাসুদ বীরযোদ্ধা ডট কমকে জানান, ২২ মাস আগে জয়পুরহাট জেলার পাঁচবিবি হাট থেকে ৮৭ হাজার টাকায় ফ্রিজিয়ান জাতের বাছুরটি কেনেন। ইচ্ছে ছিল এক বছর লালন-পালন করে কোরবানির হাটে বিক্রি করবেন গরুটি। গত বছর কুরবানী ঈদে ঢাকা থেকে এক শিল্পপতি এসে সাড়ে নয় লক্ষ টাকা দাম করেছিলেন। এবছর ঠিকমতো লালন-পালন করে এ বছর দাম হাঁকিয়েছেন ২০ লাখ টাকা। মাসুদ রানা জানান, কেনার পর থেকেই সন্তানের মতো করে ক্যাপ্টেনকে লালন-পালন করেছেন। প্রতিদিন অন্যান্য খাবারের পাশাপাশি আপেল, কমলা ও মাল্টা, আঙ্গুর খেতে দেন। নিয়মিত খাবারের মধ্যে রয়েছে সুজি, ভুসি ও খুদের ভাত। বর্তমানে প্রতিদিন তিন কেজি আপেল, কমলা ও মাল্টা খায় ক্যাপ্টেন। প্রতি মাসে সাড়ে তিন মণ সুজি, সাড়ে তিন মণ ভুসি ও তিন মণ খুদ খেতে দেয়া হয়। কেনার পর থেকে এখন পর্যন্ত ক্যাপ্টেনের পেছনে ৬/৭ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে। এ গরমে প্রতিদিন তিনবার করে গোসল করাতে হয়। ক্যাপ্টেন গরম সহ্য করতে পারে না, তাই বিদ্যুৎ চলে গেলে আইপিএস দিয়ে ফ্যান চালানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ক্যাপ্টেনের মালিক মাসুদ বলেন, মন মতো দাম পেলে বাড়ি থেকেই বিক্রি করব। আর ভালো দাম না পেলে ঢাকায় নিয়ে বিক্রি করার চিন্তা করছি, করোনার কারনে কি রকম দাম পাবো সে নিয়েও চিন্তাই আছি। ২০ লাখ টাকায় বিক্রি করার ইচ্ছা আছে।

মাসুদের স্ত্রী রাবেয়া বেগম বীরযোদ্ধা ডট কমকে বলেন, আমার স্বামী অনেক সৌখিন। নিজের সন্তানের মতো গরুটি লালন-পালন করেছেন। গরুটি আমাদের কাছে খুবই আপন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর