• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০২:০২ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

প্রবাসী মাসুদ রানা হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

বীরযোদ্ধা / ২১৭
প্রকাশিত : ৩:৫৪ পিএম, (রবিবার) ১৮ জুলাই ২০২১

ভাঙ্গা (ফরিদপুর) প্রতিনিধি :

ভাঙ্গা উপজেলার ভাঙ্গা পৌর এলাকার গজারিয়া গ্রামে ইতালী প্রবাসী মাসুদ রানা হত্যাকারীদের গ্রেফতার এবং বিচারের মাধ্যমে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী।

আজ রবিবার সকালে ফরিদপুর-বরিশাল মহাসড়কের নওপাড়া নামক স্থানে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এতে নিহতের স্বজনরা ছাড়াও স্থানীয় শত শত নারী-পুরুষ অংশগ্রহন করে।

ঘন্টা ব্যাপী মানববন্ধনে অংশগ্রহনকারীরা প্রতিবাদ সম্বলিত নানা ধরনের ব্যানার ও প্লাকার্ড বহন করেন এবং মাসুদ হত্যার বিচার চাই,বাচ্চু মাতুববরের ফাঁসি চাই সহ বিভিন্ন ধরনের শ্লোগান দেয় । এ সময় তারা অবিলম্বে মাসুদ রানার হত্যায় জড়িত বাচ্চু মাতুব্বর সহ আসামীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন- নিহত মাসুদ রানার মা হালিমা বেগম, আওয়ামীলীগ নেতা আঃ রাজ্জাক ফকির,রুবেল শেখ, নিহতের ভাই আসাদুজ্জামান,আনোয়ার মাতুব্বর প্রমুখ। মানববন্ধনে মাসুদ রানার মা সহ পরিবারের সদস্যরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন । মানববন্ধন চলাকালে বেশ কিছুক্ষন সড়কে সকল প্রকার যানবাহন বন্ধ থাকে। এ সময় সড়কে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।

প্রকাশ, গত ১৩ এপ্রিল পৌরসদরের নওপাড়া বাসস্ট্যান্ড এলাকায় মাসুদ রানা (৫০)কে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় বাচ্চু মাতুব্বরকে প্রধান আসামী করে নিহতের মা হালিমা বেগম বাদী হয়ে ৩৫ জনের নামে ভাঙ্গা থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। সম্প্রতি রহস্যজনক কারনে মামলাটি ডিবিতে স্থানান্তরিত হয়। এতে মুল আসামীরা রয়ে যায় ধরাছোয়ার বাইরে। নিহতের মা হালিমা বেগম বলেন, আমার পুত্রকে হত্যার পর আমরা নিঃস্ব হয়ে গেছি। আমার বুক যারা খালি করেছে সেই বাচ্চু খুনি সহ সকলের ফাঁসি চাই। আঃ রাজ্জাক ফকির বলেন, মামলাটি দীর্ঘদিন যাবত চললেও আসামীরা রয়েছে রহস্যজনক কারনে ধরাছোয়ার বাইরে। অবিলম্বে হত্যায় জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। নিহতের চাচাত ভাই রুবেল শেখ জানান,ওই দিন একটি দোকানে চা পান করার সময় সংঘবদ্বভাবে অতর্কিতভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মাসুদকে হত্যা করে। অথচ রহস্যজনক কারনে বাচ্চুসহ খুনিরা দাপিয়ে বেড়াচ্ছে। বরং তাদের ভয়ে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, সে তার পরিবার ও স্ত্রী নিয়ে দীর্ঘ্যদিন ইতালিতেই বসবাস করেন। এ বছর ২০ এপ্রিল ইতালি যাওয়ার কথা থাকলেও দুর্বৃত্তদের হামলায় নিহত হন তিনি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর