• সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১, ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

নির্মাণ হলো ঝড়ে বিধ্বস্ত হওয়া বিধবার বসতঘর

বীরযোদ্ধা / ৭৫
প্রকাশিত : ৬:১৪ পিএম, (বুধবার) ১৯ মে ২০২১

আশরাফ আহমেদ :

অবশেষে নির্মাণ হলো কাল বৈশাখী ঝড়ে বিধ্বস্ত হওয়া হতদরিদ্র বিধবা আকলিমা খাতুনের বসতঘর। দরিদ্র আকলিমা কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর উপজেলার আড়াইবাড়িয়া ইউনিয়নের ধুলজুরি গ্রামের বাসিন্দা। প্রতিবন্ধী ছেলেকে নিয়ে ওই ঘরে বসবাস করতেন তিনি।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত ২ মে কাল বৈশাখী ঝড়ে তছনছ হয়ে পড়ে বিধবা আকলিমার বসতঘর। ঘরটি বিধ্বস্ত হওয়ায় মাথা গুজার ঠাঁই হারিয়ে প্রতিবন্ধীর ছেলেকে নিয়ে খোলা আকাশের নিচে রাত কাটাতে হয় তাদের। বিধবা আকলিমার ভেঙে পরা ঘরটির ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পডলে মেরামতের জন্য মানবিক সহায়তায় এগিয়ে আসেন বিভিন্ন মানবিক সংগঠন। বিত্তবানসহ সংগঠনগুলোর দানে ২০ হাজার টাকায় আবারো নির্মাণ করা হয় বিধবা আকলিমা খাতুনের বসতঘর।

ঘরটি নির্মাণে এগিয়ে আসেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাবেয়া পারভেজ। তাছাড়া সার্বিক সহযোগিতা ও তদারকিতে নিয়োজিত ছিলেন এ বি এম চঞ্চল স্যার, ডিফেন্স ফ্যামিলি কেয়ার ফাউন্ডেশন, শিশুদের হাসি ফাউন্ডেশন, রক্তকমল তরুণ দল সংগঠনসহ সমাজের বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গ।

নিরবিচ্ছিন্ন শ্রমের মাধ্যমে দ্রুত সময়ের মধ্যেই ঘরটি পুনরায় নির্মাণ করে বিধবা আকলিমার হাতে তুলে দেওয়া হয়। ঘর পেয়ে আনন্দে আবেগ আপ্লুত হয়ে কেঁদে ফেলেন বিধবা আকলিমা খাতুন।

তিনি বীরযোদ্ধাকে বলেন, যারা ঘরটি পুনরায় নির্মান করে দিলো আল্লাহ যেন তাদের মঙ্গল করেন। তাদের ঋণ কোনোদিন শোধ করতে পারবোনা।

ডিফেন্স কেয়ার ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী জামিউল হাসান হেভেন বলেন, অসহায় মানুষের পাশে থেকে মানুষের মুখে হাসি ফোটানোই আমাদের মূল লক্ষ্য। বিধবার ঘর নির্মাণ করতে পেরে আমরা খুব খুশি।

সংগঠনের উপদেষ্টা এ বি এম চঞ্চল বলেন, ঘর ভেঙে যাওয়ার খবরটি পেয়ে দ্রুত সেখানে পৌঁছে সার্বিক সহযোগিতা করে ঘর নির্মাণ করতে পেরে খুব ভালো লাগছে।

নির্বাহী কর্মকর্তা রাবেয়া পারভেজ বলেন, সমাজের অসহায় মানুষের পাশে বিত্তবানরা এগিয়ে আসলে সমাজের চিত্রটাই পাল্টে যেতো। বিধবার ঘরটি নির্মাণ করে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে সংগঠনগুলো।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর