• মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০২:৫৪ অপরাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

ঝিনাইগাতীর রাংটিয়া গুচ্ছগ্রামের ভূমিহীন ২৫ পরিবারের দিনকাটছে অনাহারে

বীরযোদ্ধা / ৮৫
প্রকাশিত : ৬:২০ পিএম, (বুধবার) ৭ জুলাই ২০২১

ময়মনসিংহ ব্যুরো :

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার নলকুড়া ইউনিয়নের রাংটিয়া গুচ্ছগ্রামের ভূমিহীন ২৫ পরিবারের সদস্যদের দিনকাটছে অনাহারে অর্ধাহারে। গত বছর এ গুচ্ছগ্রামে ২৫ ভূমিহীন ছিন্নমূল গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়। ২৫টি পরিবারের ছোটবড় প্রায় শতাধিক লোকের বসবাস। এরা সবাই দিনমজুর। করোনাকালীন সময়ে কর্মহীন হয়ে অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতর জীবনযাপন করছে তারা।

গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা সিএনজি চালক মোঃ আব্দুর রাজ্জাক (ফালু) মিয়া বীরযোদ্ধা ডট কমকে জানান, লকডাউনে গুচ্ছগ্রামের সকলের ঘরে ঘরে দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট।

সরেজমিনে অনুসন্ধানে গিয়ে গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দাদের সাথে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

কাঠমিস্ত্রী আব্দুর করিম বলেন, হাতে কোন কাজ নেই, ছেলে মেয়ে নিয়ে অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতর জীবনযাপন করতে হচ্ছে তাদের। পঙ্গু রিক্সা চালক ইয়ার আলী বলেন, তার ঘরে দেখা দিয়েছে খাদ্য সংকট। ফলে অনাহারে অর্ধাহারে দিনকাটছে তাদের।

দিনমজুর ফকির আলী বলেন, ৫ সদস্যের পরিবারের ভরন পোষন যোগাতে গিয়ে তিনি এখন দিশেহারা। ঘরে এখন খাবার নেই, সন্তানদের নিয়ে অতিকষ্টে দিনাতিপাত করছেন তিনি।

দিনমজুর মোঃ হযরত আলী বলেন, ৭ সদস্যের পরিবার লকডাউনের কারনে তার ঘরে খাবার নেই, মাঝে মধ্যেই ঘরে চুলা জ্বলে না। সেদিন তাদের থাকতে হয় অনাহারে অর্ধাহারে।

তারাভানু বলেন, ৬ সদস্যের পরিবার হাতে কোন কাজ নেই। পাহাড় থেকে লাকড়ি আনতে গেলেও বনবিভাগের লোকেরা পাহাড়ে যেতে দেয় না। ফলে অনাহারে অর্ধাহারে দিনকাটছে তার পরিবারের।

দিনমজুর আব্দুর রহিম বলেন, তার ৪ সদস্যের পরিবার কোন কাজ কর্ম না থাকায় অতিকষ্টে দিনাতিপাত করছেন তারা।

রোকেয়া বেগম বলেন, আমার স্বামী প্যারালাইসিস রোগী। তাকে নিয়ে চরম বিপাকে রয়েছেন তিনি। কাজের কোন লোক নেই। করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তার ৫ শত টাকা ছাড়া আর কিছুই জুটেনি তাদের ভাগ্যে ।

রহিদ মিয়া জানান, বর্তমানে গুচ্ছগ্রামের প্রতিটি ঘরে ঘরে এখন চলছে খাদ্যসংকট। অনাহারে অর্ধাহারে মানবেতর জীবনযাপন করছে গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দারা।

ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারুক আল মাসুদ বীরযোদ্ধা ডট কমকে বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানদের মাধ্যমে সহায়তার ব্যবস্থা করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর