• সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ১০:২৩ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

ঝিনাইগাতীতে দুস্থ পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

বীরযোদ্ধা / ৭০
প্রকাশিত : ৭:৫২ পিএম, (বৃহস্পতিবার) ২৯ এপ্রিল ২০২১

শেরপুর প্রতিনিধি :

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার বেকার ও দুস্থ ২৫০ পরিবার পেয়েছে খাদ্যসামগ্রী। বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার যিদনী মডেল স্কুল মাঠে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘ভয়েস অফ ঝিনাইগাতী’র উদ্যোগে ওইসব খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

এতে আমেরিকার নিউজার্সিতে অবস্থিত একটি ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানির প্রধান গবেষক ড. জাফর ইকবালের আর্থিক সহায়তা খাদ্যসামগ্রী মধ্যে ছিল চাল, ডাল, তৈল, আলু, পিঁয়াজ, লবণ, মুড়ি ও চিনি।

পরে উপস্থিত সকলের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইগাতী থানার ওসি মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সামাদ, প্রচার সম্পাদক মুজিবর রহমান, বণিক সমিতির সভাপতি মুখলেছুর রহমান খান, সাধারণ সম্পাদক ফারুক আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাসুদ মিয়া, ভয়েস অফ ঝিনাইগাতী’র প্রতিষ্ঠাতা মো. জাহিদুল হক মনির ও সংগঠনের প্রশাসনিক এডমিন মোশারফ হোসাইন।

খাদ্যসামগ্রী পেয়ে রামেরকুড়া এলাকার আলী বীরযোদ্ধাকে বলেন, আমরা খুব কষ্টে ছিলাম এতদিন। লকডাউনের মধ্যে আমি গাড়ী নিয়ে বের হতে পারিনি। খুব কষ্ট করে দিন চলেছে আমাদের। কেউ আমাদের সহযোগিতা করেনি। এখন ক’দিন ঠিক মতো খেতে পারবো।

ওই এলাকার আরেক বাসিন্দা আমেছা বেগম বলেন, বাপু কি আর কমু দুখের কথা। সরকার সব বন্ধ করে লকডাউন দিছে কিন্তু আমাদের জন্য কোন ব্যবস্থা করেনি। বিভিন্ন জনের কাছে চাল চেয়ে রান্না করে খাইছি। টিএনও সাহেবও চাল, ডাল কিছুই দেইনি। আপনারা দিলেন খুব উপকার হইল আমাদের। আল্লাহ আপনাদের ভালা করুক।

ঘোষগাঁও এলাকার বাসিন্দা লাল মিয়া বীরযোদ্ধাকে বলেন, অনেক কিছু পাইছি। এখন আরামে কয়দিন খাইতে পারমু। আল্লাহর রহম এখন আর কোন কষ্ট অইবো না। আপনাদের মতো ঝিনাইগাতীতে আরও মানুষ দরকার, তাইলে মানুষ আর কষ্টে থাকবো না। আমরা শুনলাম কোন বিদেশি নাকি আমাদের এসব খাবার দিছে আমরা মন থেকে দোয়া করি, আল্লাহ যেনো তাকে সুখি করে।

ভয়েস অফ ঝিনাইগাতী’র প্রতিষ্ঠাতা মো. জাহিদুল হক মনির বীরযোদ্ধাকে বলেন, আমাদের এ সংগঠনটি বাল্যবিবাহ এবং সমাজের গরীব, দুস্থ, অসহায় পরিবার ও শিক্ষার্থীদের সমস্যা সমাধানে কাজ করে আসছে। সেই ধারাবাহিকতায় ড. জাফর ইকবাল ভাইয়ের অর্থায়নে আমরা আজ এসব বিতরণ করতে পেরেছি। আমরা বিশ্বাস করি আমাদের মতো বিভিন্ন সংগঠন ও বিত্তবানরা যদি সমাজের অসহায় মানুষের মাঝে এগিয়ে আসে তাহলে লকডাউনে মানুষ আর কষ্টে থাকবে না।

তিনি আরও বলেন, করোনার প্রথম ধাপে আমরা হতদরিদ্রদের মাঝে খাদ্যসামগ্রী ও মাস্ক বিতরণ করেছি। এছাড়া শিক্ষার্থীদের ভর্তির টাকা জোগাড় করে দিয়েছি আমাদের ‘ভয়েস অফ ঝিনাইগাতী’র ফেসবুক গ্রুপ থেকে। আমরা চেষ্টা করছি প্রতিনিয়ত মানুষকে সহযোগিতা করার।

ওসি মোহাম্মদ ফায়েজুর রহমান বলেন, খুব ভালো একটি উদ্যোগ নিয়েছে ‘ভয়েস অফ ঝিনাইগাতী’। আমিও তাদের সাথে ব্যক্তিগতভাবে কাজ করার চেষ্টা করবো। কারণ সবাই যদি এগিয়ে আসে তাহলে অসহায় ও দুস্থ মানুষের কষ্ট লাগব হবে। এজন্য বিভিন্ন সংগঠন ও সমাজের বিত্তবানরা এগিয়ে আসা দরকার।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর