• সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:৪৯ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

কিশোরগঞ্জে লাভের আশা করছেন গরু খামারী এরশাদ উদ্দিন

বীরযোদ্ধা / ৫৮
প্রকাশিত : ৮:৩১ পিএম, (শুক্রবার) ২৮ মে ২০২১

ময়মনসিংহ ব্যুরো :

কিশোরগঞ্জের করিমগঞ্জের নিয়ামতপুরের রোহা গ্রামের বাসিন্দা বাংলাদেশ মিলস্কেল রি-প্রসেস এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এবং জেসি গ্রুপ এর প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এরশাদ উদ্দিনের নতুন আধুনিক জে সি এগ্রো দুগ্ধ ও গরু মোটাতাজা করণ প্রকল্প এলাকায় সাড়া জাগিয়েছে।

নিয়ামতপুরের বিলে ১০ একর নিজস্ব জায়গায় গরুর খামারেই এখন সময় দিচ্ছেন এরশাদ উদ্দিন। গরু পোষা তাঁর প্রিয় সখ। তাই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি পরিকল্পনা ছিল গরুর খামার প্রতিষ্ঠার। গত বছরের মার্চে বিশ্বে করোনার প্রাদুর্ভাবে সারাদেশে যখন লকডাউন ছিল, তিনি তখন ঢাকা হতে নিজ এলাকায় এসে অবসর সময় না কাটিয়ে করোনার ভেতরেই উদ্যোগ নেন গরু খামারের। ৬০টি দেশি বিদেশী গরু দিয়ে খামার শুরু করেন। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে গরু মোটাতাজাকরণেরও উদ্যোগ নেন। অনেক গরু কুরবানীর জন্য উপযোগী হলে খামারে এসেই নিয়ে যাবে গরু ক্রেতারা। খামারে বিদেশী কিছু গাভী দিয়ে দুগ্ধ খামারও সম্প্রসারণ করেছেন।

আসন্ন কোরবানিকে সামনে রেখে উন্নত জাতের ২৫০টি গরু ও মহিষ মোটাতাজাকরণের কাজ করছেন তিনি। আশা করছেন, প্রতিটি গরু ভালো টাকায় বিক্রি করতে পারবেন। ৫০০ গরু এক সাথে লালন পালনের পরিকল্পনা নিয়ে তিনি এ খামারটি প্রতিষ্ঠা করেছেন। খামারের জন্য তাকে দিতে হয়েছে প্রচুর পরিশ্রম। বিনিয়োগ করতে হয়েছে এককালীন বড় অংকের টাকা। এ ছাড়া গত কয়েক মাস ধরে গরুগুলোর পেছনে প্রতিদিন তার ব্যয় হচ্ছে মোটা অংকের টাকা।

তিনি বলেন, আমাদের খামারে ক্রেতা যেন উচ্চ মুল্যে গরু ক্রয় করতে না হয়। তাই ডিজিটাল স্কেলের মাধ্যমে গরুর লাইভ ওয়েট নির্ণয় করা হয়। তাতে ক্রেতা গোস্তের সঠিক আইডিয়া পেতে সুবিধা হয়, ক্রেতা ঠকার কোন সুযোগ নেই। খামারে সবুজ ঘাস ও অন্যান্য প্রাকৃতিক খাবারের মাধ্যমে গরু মোটাতাজাকরণ করা হয়। গরুর খাবারের জন্য আমার বাড়ির পাশেই কয়েক একর জায়গায় উন্নত জাতের ঘাসেরও চাষাবাদ করেছি।

বাংলাদেশ মিলস্কেল রি-প্রসেস অ্যান্ড অ্যাক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সফল খামারি আলহাজ্ব এরশাদ উদ্দিন বলেন, ‘বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশে আমরা এই প্রথম গরু মোটাতাজা ও দুগ্ধ ফার্মের জন্য সরাসরি জমি থেকে ভুট্টার সাইলেজ তৈরির মেশিন আমদানি করি। আমাদের গরুর ফার্মের ব্যবহারের জন্য কিশোরগঞ্জের হাওরাঞ্চলের পাঁচশত একর ভুট্টার জমি থেকে অগ্রিম ভুট্টার চারা ক্রয় করে নিয়েছিলাম। যেগুলো জার্মানি স্ট্যান্ডার্ডে জার্মান মেশিনে সরাসরি জমি থেকে সাইলেজ চপিং করা হয়। যা গরুর জন্য খুবই উপকারী খাবার।’

তিনি আরও বলেন, আমাদের খামারে কেমিকেল বা বিষযুক্ত খাবার ব্যবহার করা হয় না। আধুনিক চিকিৎসা সেবার মাধ্যমে প্রতিটি গরুকে রোগমুক্ত করে সুস্থ সবল করে রাখা হয়। শুধু ঈদ নয় বছরের যেকোনো অনুষ্ঠানের জন্য খামার থেকে গরু ক্রয় করতে পারবেন। মাশাআল্লাহ, আলহামদুলিল্লাহ আগামী কোরবানী ঈদের জন্য আমাদের দেশি বিদেশী অনেক উন্নতজাতের ষাঁড় ও বলদের শত শত কালেকশান। এই শত শত বিভিন্ন জাত থেকে ক্রেতাদের পছন্দ অনুযায়ী বেছে নিতে পারবে। আমাদের মূল বৈশিষ্ট্য হল হাওরে উৎপাদিত শতভাগ প্রাকৃতিক খাবার যেমন ঘাস, সাইলেজ এবং ভূষি ও ধানের কূড়া এগুলোর মাধ্যমে লালন পালন করা হয়। পরিবারের সদস্যদের মতো এসব গরুকে নিয়মিত চিকিৎসা প্রদান করা হয়। তাই সুস্থ ও সবল গরুর জন্য আমাদের খামারে আসুন।

এরশাদ উদ্দিনের খামারে গিয়ে দেখা যায় গরুর যত্নে ব্যস্ত তিনি নিজেই। তাঁর খামারের লোকজন কেউ খড় কেটে দিচ্ছেন গরুর সামনে। কেউ গরুকে গোসল করাচ্ছেন কেউবা তার দুগ্ধ খামারে দুধ দোহন করছেন। তিনি চিন্তা করছেন খামারটি আরও সম্প্রসারণ করবেন। এতে করে একদিকে যেমন এলাকার বেকার জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান হবে অন্যদিকে অর্থনৈতিক লাভবান হওয়া যাবে।

নিষ্ঠার সঙ্গে কাজ করতে পারলে চাকরির পেছনে না ছুটে শিক্ষিত তরুণদের এমন উদ্যোগ নেওয়া উচিত বলে মনে করেন এরশাদ উদ্দিন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর