• সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:২০ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

কটিয়াদীতে খাল ভরাট করায় জলাবদ্ধতা সৃষ্টি, ক্ষতির শিকার কৃষকেরা

বীরযোদ্ধা / ১০
প্রকাশিত : ৮:৪৬ পিএম, (সোমবার) ১৯ এপ্রিল ২০২১

মোঃ ফারুক হোসেন, ময়মনসিংহ ব্যুরো :

কিশোরগঞ্জের কটিয়াদী উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের চরপুক্ষিয়া গ্রামের ঐতিহ্যবাহী কুটির ও দূর্বাবিলের খালটি বিলীন ও কাটতে কাটতে সরু ড্রেনের ন্যায় করে দিচ্ছে কতিপয় অসাধু ভূমিদস্যুরা। এলাকাবাসি খালটির জন্য উপজেলা চেয়ারম্যান, প্রশাসন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বরাবর অভিযোগ দিলেও কোনো উদ্যোগ নিচ্ছেন না বলে দাবি তাদের। খাল ভরাট করার কারনে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি ও শত শত কৃষক ক্ষতির শিকর হচ্ছেন।

জানা যায়, জালালপুর ইউনিয়নের চরঝাকালিয়া গ্রামের কতিপয় অসাধু স্বার্থপর লোকেরা চরঝাকালিয়া মৌজার কুটিরবিল থেকে দুর্বাবিল পর্যন্ত খালটিকে কাটতে কাটতে প্রায় জমির সাথে মিশিয়ে ফেলছে। এতে করে বর্ষার মৌসুমে কয়েক গ্রামের পানি এই খাল দিয়ে প্রবাহিত না হওয়ায় এলাকার কৃষি জমি পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে। স্থায়ী জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে এবং কৃষি জমির ওপর হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে। যা ওই এলাকার শত শত কৃষকেরা ক্ষতির শিকার হচ্ছে বর্ষা মৌসুমে।

এ এলাকার লোকজন একে অপরের সাথে পাল্লা দিয়ে তাদের বাড়ি বরাবর মাটি দিয়ে ওই খালটি ভরাট করায় ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে সাধারন প্রান্তিক কৃষকেরা। এর জন্য স্থানীয় সংসদ সদস্য নূর মোহাম্মদের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন প্রান্তিক চাষিরা।

ওই এলাকার সাবেক মেম্বার আঃ মোতালিব জানান, বহু বছর আগে থেকে বর্ষার মৌসুমে ওই খাল দিয়ে এলাকার কৃষকরা তাদের ফসল নৌকা দিয়ে আনা নেওয়া করতো এবং রবি মৌসুমে খাল থেকে পানি নিয়ে বোরো ধান, আলু, মরিচ, পেঁয়াজসহ বিভিন্ন শীতকালীন শাক সবজি চাষাবাদ করতো।

এলাকার প্রান্তিক চাষিরা জানান, এ খালটির প্রস্থ ছিল ১৬ ফুট। এখন এলাকার কিছু ভূমিদস্যুরা মাটি দিয়ে ভরাট করতে করতে ড্রেনের মত সরু করে ফেলেছে। ফলে বর্ষার মৌসুমে পানি চলাচল করতে পারেনা এবং জমাট বেঁধে থাকে। এতে করে কয়েকশত কৃষকের ফসল নষ্ট হচ্ছে। এ

লাকার কৃষকগন জানান, আমাদের একটাই দাবি এ খালটি দ্রুত খনন করে আমাদের ফসলগুলো রক্ষা করলে আমরা সকল কৃষকগন উপকৃত হব।

এ ব্যাপারে কটিয়াদীর নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার জ্যোতিশ্বর পাল বলেন, আমি এ বিষয়টি শুনেছি, ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর