• সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪:০৩ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

‘এল্লা মেঘ হইলেই সোনালী কালার পানি আহে’

বীরযোদ্ধা / ৪৭
প্রকাশিত : ৮:১১ পিএম, (বুধবার) ৩০ জুন ২০২১

ময়মনসিংহ ব্যুরো :

টানা তিন দিনের ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে থেমে আসা পাহাড়ি ঢলে শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার ৩০ গ্রামের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এতে পানি উঠেছে ঝিনাইগাতী সদর বাজারের বেশিরভাগ দোকানে। ডুবে গেছে কাচা পাকা সড়ক ও অর্ধ-শতাধিক মাছের ঘের। সোমবার (২৮ জুন) থেকে শুরু হয় ভারী বর্ষণ।

স্থানীয়রা জানায়, টানা বৃষ্টিতে পাহাড় থেকে নেমে আসা মহারসী নদীর পানির তোড়ে দিঘিরপাড় অংশের শহর রক্ষা বাঁধ ভেঙে পানি নিম্নাঞ্চলে প্রবেশ শুরু করে। এরপর কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে নিম্নাঞ্চলে পানি জমে যায়। এতে ডুবে যায় কাচা-পাকা বিভিন্ন সড়ক ও অর্ধ-শতাধিক মাছের ঘের।

দিঘিরপাড় এলাকার বাসিন্দা রমজান আলী বলেন, ‘প্রতি বছরই আমাদের গ্রামে পাহাড়ি ঢলের পানি আসে। এতে আমাদের ঘরসহ আশপাশের ঘর ডুবে যায়। তখন আমরা পরিবার নিয়ে আত্মীয় কিংবা স্কুলের বারান্দায় ভ্রাম্যমান বাসা বানিয়ে থাকি।’

পাশেই থাকা বাসিন্দা লাভলী বেগম। ওই সময় কথার হয় তার সাথে। তিনি বলেন, ‘আমগর এলাকায় এল্লা (অল্প বৃষ্টি) মেঘ হইলেই সোনালী কালার (পাহাড়ি ঢল) পানি আহে (আসে)। এডা নতুন কিছু না, প্রতি বছরই আহে (আসে)।’

ঝিনাইগাতী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ফারুক আল মাসুদ বলেন, ‘আমি ইতোমধ্যে ভাঙা বাঁধ ও ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করেছি। উপজেলা প্রশাসন থেকে যতটুকু দেওয়া সম্ভব আমরা অবশ্যই তাদের মাঝে বিতরণ করবো। এছাড়া বাঁধ সংস্কার করা হবে শীঘ্রই, যাতে পানি নদী থেকে লোকালয়ে না আসে।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর