• সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:৫৭ পূর্বাহ্ন
  • Bengali Bengali English English
নোটিশ :
* ২৬ মার্চ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশবাসীকে বীরযোদ্ধা অনলাইন পত্রিকার পক্ষ থেকে জানাই প্রাণ ঢালা অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা * বিভিন্ন বিভাগ, জেলা ও উপজেলাতে অভিজ্ঞ সংবাদকর্মী  আবশ্যক। আগ্রহীদের নিম্নে ঠিকানায় যোগাযোগ করার জন্য জানানো যাচ্ছে।

ঈদের দিনে হোসেনপুর ব্রহ্মপুত্র ব্রিজে মানুষের ঢল, মানছেনা স্বাস্থ্যবিধি

বীরযোদ্ধা / ২২৬
প্রকাশিত : ৬:২০ পিএম, (শুক্রবার) ১৪ মে ২০২১

হোসেনপুর (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি : 

ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে খুশি। এই পবিত্র ঈদুল ফিতরের খুশিতে আত্মহারা হয়ে শিশু-কিশোর, যুবক-যুবতী, নারী-পুরুষরা ও আনন্দে মাতোয়ারা।

অথচ বিশ্বে এখন করোনা মরণব্যাধি নিয়ে সবাই আতঙ্কগ্রস্ত। দেশে চলছে লকডাউন। শুধুমাত্র কাগজপত্রেই লকডাউন, বাস্তবে তা বিপরীত। যদিও স্বাস্থ্যবিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে লোকের সমাগম হওয়ার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়। কিন্তু কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে ব্রহ্মপুত্র ব্রিজে ঈদের দিনে স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে শিশু-কিশোর ও নারী-পুরুষসহ হাজারো মানুষের ঢল নেমেছে।

smart

তারা নেচে গেয়ে আনন্দে সবাই উদ্বেলিত। বিভিন্ন আতশবাজি ,পটকা ফুটিয়ে আনন্দ উল্লাসে মেতেছে শিশু-কিশোরসহ কতিপয় উঠতি বয়সি যুবকেরা। কিন্তু মহামারী করোনা ব্যাধির ভয়ের লেশমাত্র নেই কারো চোখে মুখে। কারো মুখে নেই মাস্ক, নেই সামাজিক দুরত্ব, মানছেনা স্বাস্থ্য বিধি। অটো রিক্সা কিংবা পিকআপ ভ্যানে সাউন্ড বক্সে উচ্চস্বরে গান বাজিয়ে নেচে গেয়ে হৈ-হুল্লোড়ে মুখরিত করে তুলেছে ব্রহ্মপুত্র ব্রিজ। উচ্চস্বরে বেবু বাঁশির শব্দে কান ভারি হওয়ার উপক্রম।

কিশোরী কিংবা নারীরা অপরূপ সাজে সেজে দলবেঁধে এসেছেন ঘুরতে। বহু মানুষের সমাগমকে কেন্দ্র করে বসেছে চটপটি, ঝাল মুড়ি ও ফুসকার দোকান। গ্রীষ্মের প্রচন্ড রৌদ্রের খরতাপের মাঝেও নেই কারো ক্লান্তির ছাপ। নদে নৌকা নিয়ে অনেকেই ঘুরছে এপার থেকে ওপারে। তবে এখানে গ্রীস্মের তালের আষাড়ির ব্যাপক চাহিদা বেড়েছে। আষাড়ি বিক্রেতার দম ফেলার ফুরসত নেই।

অটো রিক্সা, মোটর সাইকেল ও পিকআপ ভ্যানের কারণে সৃষ্টি হয়েছে ব্রিজে যানজট। ফলে সাধারণ যাত্রীরা পড়েছেন ভোগান্তিতে।

এ সময় ব্রিজে ঘুরতে আসা শিপন, তন্বী ,ত্বকিসহ অনেকেই বীরযোদ্ধাকে বলেন, ঈদ আনন্দে করোনার ভয় হারিয়ে গেছে। তবে আমাদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে আনন্দ-উল্লাস করা উচিত।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর